বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব কি? সুবিধা, নিয়ম ও শর্তাবলী জেনে নিন

বাংলালিংক তাদের গ্রাহকদের জন্য ‘অরেঞ্জ ক্লাব’ নামে নতুন লয়্যালিটি প্রোগ্রাম চালু করেছে। যারা অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্য হবেন তারা বিভিন্ন ধরনের অফার এবং সুবিধা পাবেন। কিন্তু অনেকেই বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব সম্পর্কে জানেনা। যদি আপনি বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব কি না জানেন তাহলে এই পোস্ট আপনার জন্য। 


কারণ এই পোস্টে বাংলালিংকের অরেঞ্জ ক্লাব সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেয়া হবে। এছাড়াও কত টাকা রিচার্জ করলে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্য হবেন সেটাও জানতে পারবেন। আপনারা বাংলালিংক কয়েন ব্যালেন্স কি, সুবিধা ও ব্যবহার করার নিয়ম জেনে খুব সহজেই বাংলালিংকের অরেঞ্জ ক্লাব ব্যবহার করতে পারবেন- 


বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব কি


বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব কি? 

বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব হচ্ছে বাংলালিংক গ্রাহকদের জন্য একটি বিশেষ সুবিধা। এটি বাংলালিংকের এমন একটি লয়্যালিটি প্রোগ্রাম যার মাধ্যমে অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্যরা বাংলালিংকের পার্টনার ব্র্যান্ড থেকে বিভিন্ন অফার এবং অরেঞ্জ ক্লাব কয়েন দিয়ে ইন্টারনেট, মিনিট ইত্যাদি নিতে পারবে। 


এছাড়াও অরেঞ্জ ক্লাবের মেম্বাররা বাংলালিংকের কাস্টমার কেয়ার থেকে অতিরিক্ত সুবিধা পাবে। তবে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্যরা তাদের বাংলালিংক সিম ব্যবহার এবং রিচার্জের উপর ভিত্তি করে ব্রোন্জ, সিলভার, গোল্ড, প্ল্যাটিনাম ও সিগনেচার লেভেল নিতে পারবে। একেক লেভেলে একেক রকম সুবিধা রয়েছে। 


বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্য হওয়ার উপায়ঃ 

যেকোনো বাংলালিংক গ্রাহক চাইলেই অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্য হতে পারবে। বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্য হওয়ার জন্য কোনো রকমের রেজিস্ট্রেশন করতে হয় না। বরং আপনি নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে রিচার্জ করার মাধ্যমে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্য হতে পারবেন। 


ব্রোন্জ, সিলভার, গোল্ড, প্ল্যাটিনাম ও সিগনেচার নামে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের পাঁচটি লেভেল রয়েছে। কোনো গ্রাহক যদি তিন মাসে এভারেজ ৭০ টাকা খরচ করে তাহলে সে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্য হবে। দেখুন কত মাসে কত টাকা রিচার্জ করলে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের কোন লেভেল পাওয়া যাবে- 


  • Bronze - যদি কোনো গ্রাহক তার বাংলালিংক সিমে তিন মাসে এভারেজ ৭০ টাকা খরচ করে তাহলে সে অরেঞ্জ ক্লাবের প্রথম লেভেল Bronze পাবে। 

  • Silver - যদি কোনো গ্রাহক তার বাংলালিংক সিমে তিন মাসে এভারেজ ২০০ টাকা খরচ করে তাহলে সে অরেঞ্জ ক্লাবের Silver লেভেল পাবে। 

  • Gold - যদি কোনো গ্রাহক তার বাংলালিংক সিমে তিন মাসে এভারেজ ৪০০ টাকা খরচ করে তাহলে সে অরেঞ্জ ক্লাবের Gold লেভেল পাবে। 

  • Platinum - যদি কোনো গ্রাহক তার বাংলালিংক সিমে তিন মাসে এভারেজ ১০০০ টাকা খরচ করে তাহলে সে অরেঞ্জ ক্লাবের Platinum লেভেল পাবে। 

  • Signature - যদি কোনো গ্রাহক তার বাংলালিংক সিমে তিন মাসে এভারেজ ৩২০০ টাকা খরচ করে তাহলে সে অরেঞ্জ ক্লাবের Signature লেভেল পাবে। 


এই হচ্ছে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবে সদস্য হওয়ার পদ্ধতি। আপনারা উপরে উল্লেখিত পরিমাণ টাকা তিন মাসে ব্যবহার করে অরেঞ্জ ক্লাবের বিভিন্ন পদের মেম্বার হতে পারবেন। 


আরো দেখুনঃ বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব কয়েন ব্যবহার করার নিয়ম


বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সুবিধাঃ 

বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সুবিধা অনেক। একজন অরেঞ্জ ক্লাবের মেম্বার বিভিন্ন সুবিধা উপভোগ করতে পারবে। সুবিধাগুলো হচ্ছে- 


  • বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের মেম্বার হলে অনেক কয়েন পাওয়া যায়। এই কয়েন দিয়ে ইন্টারনেট, মিনিট, এসএমএস ফ্রিতেই নেওয়া যায়। 

  • গোল্ড এবং তার উপরের লেভেলের মেম্বাররা যেকোনো সমস্যায় বাংলালিংক কাস্টমার কেয়ার থেকে অতিরিক্ত সুবিধা পাবে। 

  • Platinum এবং Signature গ্রাহকরা তাদের বাংলালিংক সিম ফ্রিতেই রিপ্লেস করতে পারবে। 

  • বাংলালিংকের যেসব পার্টনার রয়েছে তাদের পণ্যে অরেঞ্জ ক্লাবের মেম্বাররা অফার পাবে। খাবার, হোটেল বুকিং, ভ্রমণ ইত্যাদি ক্ষেত্রে বাংলালিংকের অরেঞ্জ ক্লাবের মেম্বাররা বিভিন্ন অফার ও সুবিধা পাবে। 


এই ছিল বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সুবিধা। কোনো বাংলালিংক গ্রাহক যদি অরেঞ্জ ক্লাবের মেম্বার হয় তাহলে উক্ত সুবিধাগুলো পাবে। 


বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের শর্তাবলীঃ 

সাধারণত কোনো বাংলালিংক গ্রাহক যদি তার বাংলালিংক সিমে তিন মাসে এভারেজ ৭০ টাকা খরচ করে তাহলে সে অরেঞ্জ ক্লাবের প্রথম লেভেল Bronze পাবে। এই লেভেলের মেয়াদ পরবর্তী তিন মাস পর্যন্ত থাকবে। যদি কোন বাংলালিংক গ্রাহক তার বাংলালিংক সিমে আরো বেশি টাকা খরচ করে তাহলে সেই মাসেই সে অরেঞ্জ ক্লাবের পরবর্তী লেভেলে যাবে। 


তবে যদি কোনো কাস্টমার orange club এর লেভেল পাওয়ার পর পরবর্তীতে খরচ করা কমিয়ে দেয় তাহলেও তার লেভেল এর মেয়াদ তিন মাস থাকবে। পরবর্তীতে তিন মাস পর তার খরচ অনুযায়ী বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের লেভেল পরিবর্তন অথবা বাতিল হবে। 


বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের কয়েন পাওয়ার উপায়ঃ 

সকল বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্যরা Pay As You Go (PAYG) = Tk. 0.01 (excl SD, VAT and SC) = 1 Coin, i.e. 1 Paisa = 1 Coin পাবে। এছাড়াও মাই বাংলালিংক অ্যাপের Earn coins অপশন থেকে নির্দিষ্ট প্যাকেজ ক্রয় করলে সেই প্যাকেজে থাকা কয়েন পাবে। অতঃপর সেই কয়েন দিয়ে ইন্টারনেট, এসএমএস ইত্যাদি ফ্রিতেই নিতে পারবে। 


বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের রেজিস্ট্রেশন করার নিয়ম ও বাতিল করার উপায়ঃ 

যদি কোনো বাংলালিংক গ্রাহক তার বাংলালিংক সিম 90 দিন বন্ধ রাখে তাহলে তার অরেঞ্জ ক্লাব রেজিস্ট্রেশন অটোমেটিক বাতিল হয়ে যাবে। এতে সেই ব্যক্তি বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের যে লেভেলে ছিল সেই লেভেল বাতিল হওয়ার পাশাপাশি তার সকল কয়েন কেটে নেয়া হবে। তবে যদি সেই ব্যক্তি আবার তার বাংলালিংক সিমে টাকা খরচ করে এবং বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের নিয়মগুলো মানে তাহলে সে আবার বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের সদস্য হবে। 


বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের লেভেল কিভাবে দেখে? 

আপনি বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের কি লেভেলে রয়েছেন সেটি মাই বাংলালিংক অ্যাপের মাধ্যমে খুব সহজেই দেখতে পারবেন। অথবা *১২১*৬# কোড ডায়াল করে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব সম্পর্কে জানার পাশাপাশি আপনার বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবে কয়েন থাকলে সেই কয়েন ব্যবহার করতে পারবেন। 


এই ছিলো বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্যাবলী। উপরে বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব কি, সুবিধা ও শর্তাবলী সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেয়া হয়েছে। আপনারা উপরে তথ্য অনুযায়ী খুব সহজেই বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাবের মেম্বার হয়ে বিভিন্ন অফার ও সুযোগ ব্যবহার করতে পারবেন। 


আরো দেখুনঃ বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব কয়েন চেক করার নিয়ম


পরিশেষে বলতে চাচ্ছিঃ

বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব নিয়ে এই পোস্ট আশা করছি আপনাদের ভালো লাগবে এবং কাজে আসবে। যদি এই পোস্ট আপনাদের ভালো লাগে এবং কাজে আসে তাহলে কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। এছাড়াও যদি আপনাদের কোথাও বুঝতে সমস্যা হয় অথবা বাংলালিংক অরেঞ্জ ক্লাব সম্পর্কে বিস্তারিত আরো কিছু জানতে চান তাহলে কমেন্টে জানাতে পারেন। তবে বাংলালিংক অপারেটর নিয়ে নিত্য নতুন পোস্ট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকতে ভুলবেন না। 

Share This Article On:

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url