বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার নিয়ম (সুবিধা ও অসুবিধা)

অনেক প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিদেশ থেকে বিকাশের মাধ্যমে রেমিট্যান্স পাঠিয়ে থাকেন। প্রবাসী বাংলাদেশিরা চাইতো বিদেশ থেকে যেন বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করা যায়। বিকাশ কর্তৃপক্ষ তাদের কথা শুনে বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার সুবিধা এনেছে। কিন্তু অনেকেই রয়েছেন যারা বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার নিয়ম জানেনা। 


যদি আপনি বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করার নিয়ম না জানেন তাহলে এই টিউটোরিয়াল আপনার জন্য। কারণ এই টিউটোরিয়ালে দেখাবো "কিভাবে বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করতে হয়"। আপনারা বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করার পদ্ধতি জানার মাধ্যমে খুব সহজেই বিদেশ থেকে বিকাশ ব্যবহার করে বিকাশের সকল সুবিধা নিতে পারবেন- 


বিদেশে থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার নিয়ম


বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহারঃ 

বর্তমানে বিকাশ হচ্ছে সবচেয়ে জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস। বিকাশের মাধ্যমে শুধুমাত্র বাংলাদেশেই টাকা আদান প্রদান নয় বরং প্রবাসী বাংলাদেশিরাও বিদেশ থেকে বিকাশে তাদের কষ্টের উপার্জন করা টাকা পাঠিয়ে থাকে। কিন্তু এতদিন বাংলাদেশের বাইরে অর্থাৎ বিদেশে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করা যেত না। 


প্রবাসী বাংলাদেশীদের কথা ভেবে বিকাশ কর্তৃপক্ষ বিদেশে বিকাশ একাউন্ট ও অ্যাপ ব্যবহার করার সুযোগ করেছে। এখন বিদেশে থাকা প্রবাসী বাংলাদেশীরা খুব সহজেই বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করতে পারবে এবং বিকাশ থেকে বাংলাদেশে তাদের কষ্টের উপার্জন করা টাকা পাঠাতে পারবে। 


আরো দেখুনঃ বিদেশ থেকে বিকাশে টাকা পাঠানোর নিয়ম


কিভাবে বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ও একাউন্ট ব্যবহার করে? 

বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার কিছু নিয়মাবলী রয়েছে যেসব নিয়ম মেনে আপনাদেরকে বিদেশ থেকে বিকাশ ব্যবহার করতে হবে। বর্তমানে আপনারা দুইটি পদ্ধতিতে বিদেশ থেকে বিকাশ ব্যবহার করতে পারবেন। বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার দুইটি পদ্ধতি হচ্ছে- 


  • পূর্বের বিকাশ একাউন্টের নাম্বার পরিবর্তন করে 

  • বিদেশে নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলে 


আপনারা উক্ত দুইটি মাধ্যমে বিদেশে থেকেও বিকাশ ব্যবহার করতে পারবেন। নিম্নে পূর্বের বিকাশ একাউন্টের নাম্বার পরিবর্তন করে এবং বিদেশে নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলে বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ও অ্যাপ ব্যবহার করার নিয়মাবলী দেখানো হলো- 


বিকাশ নাম্বার পরিবর্তন করে বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার নিয়মঃ

যদি আপনার আগে থেকেই বিকাশ একাউন্ট খোলা থাকে তাহলে আপনি এখন সেই বিকাশ একাউন্ট বিদেশে বসেও ব্যবহার করতে পারবেন। তবে আগের বিকাশ একাউন্ট বিদেশে ব্যবহারের জন্য আপনাকে বিকাশ একাউন্টের নাম্বার পরিবর্তন করতে হবে। কারণ আপনি দেশে থাকতে যে বাংলাদেশী নাম্বার দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলেছিলেন সেই বাংলাদেশি নাম্বার দিয়ে বিদেশে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করতে পারবেন না। 


এই কারণে যদি আপনি বিদেশে থেকে আপনার আগের বিকাশ একাউন্ট যেটা বাংলাদেশে বসে খুলেছিলেন সেই বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে বিকাশ একাউন্টের বাংলাদেশি নাম্বার পরিবর্তন করে আপনি যে দেশে আছেন সেই দেশের নাম্বার যুক্ত করতে হবে। এরপর আপনি খুব সহজেই বিদেশে থেকেও বিকাশ একাউন্ট ও বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন। অতঃপর সেই বিকাশ একাউন্ট থেকে বিদেশ থেকে দেশে টাকা পাঠাতে পারবেন। 


নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলে বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করার নিয়মঃ 

এখন বিদেশ থেকেও বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়। আপনারা চাইলে বিদেশে থেকেও খুব সহজেই বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন এবং সেই বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করতে পারবেন। বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনার বাংলাদেশের জাতীয় পরিচয়পত্র এবং যে দেশে অবস্থান করছেন সেই দেশের মোবাইল নাম্বার দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হবে। 


তবে আপনি চাইলে সকল দেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন না। নির্দিষ্ট কিছু দেশ রয়েছে সেইসব দেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট খোলা ও ব্যবহার করা যায়। আপনি যে দেশে অবস্থান করছেন সেই দেশে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার ও খোলা যায় কিনা সেটি প্রথমে নিশ্চিত হয়ে নিবেন। তবে যদি আপনি বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম না জানেন তাহলে নিচের লিংকে দেয়া পোস্ট থেকে জেনে নিন- 


আরো দেখুনঃ বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম


কোন কোন দেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট খোলা ও বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করা যায়? 

ইতিমধ্যে আপনারা বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার নিয়ম জানতে পেরেছেন। তবে বিকাশ কর্তৃপক্ষ সকল দেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট খোলার ও ব্যবহার করার অনুমতি দেয়নি। যেসব দেশে বেশি বাংলাদেশি রয়েছে সেইসব দেশে বিকাশ কর্তৃপক্ষ বিকাশ একাউন্ট খোলার ও বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করার সুযোগ দিয়েছে। যেসব দেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট খোলা ও ব্যবহার করা যায় সেইসব দেশের নাম হচ্ছে- 


  • সিঙ্গাপুর, 

  • মালয়েশিয়া, 

  • ইতালি, 

  • কাতার, 

  • যুক্তরাজ্য, 

  • সৌদি আরব, 

  • সংযুক্ত আরব আমিরাত, 

  • ওমান, 

  • দক্ষিণ কোরিয়া, 

  • কুয়েত, 

  • বাহরাইন, 

  • দক্ষিণ আফ্রিকা


আপনারা উক্ত দেশগুলো থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার ও নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন। তবে পরবর্তীতে হয়তো বিকাশ কর্তৃপক্ষ অন্যান্য দেশেও বিকাশ অ্যাপ ব্যবহারের অনুমতি দিতে পারে। তবে এর জন্য অপেক্ষা করতে হবে। 


বিদেশ থেকে বিকাশ ব্যবহার করার সুবিধাঃ 

বিদেশ থেকে বিকাশ ব্যবহার করার সুবিধা অনেক। প্রবাসী বাংলাদেশীরা সব সময় চাইতো তাদের কষ্টে উপার্জন করা টাকা যেকোন সময়ে যেকোনো প্রয়োজনে দেশে থাকা প্রিয়জনদের কাছে পৌঁছে দিতে। কিন্তু পূর্বে বিদেশে বিকাশ ব্যবহার করার সুবিধা না থাকায় প্রবাসীরা মানি ট্রান্সফার প্রতিষ্ঠানের সাহায্যে দেশে টাকা পাঠাত। কিন্তু এটি ছিল ঝামেলার ও অনেক সময়ের ব্যাপার। 


বিকাশ কর্তৃপক্ষ বিদেশে কর্মরত লক্ষ লক্ষ বাংলাদেশি প্রবাসীদের কথা মাথায় রেখে বিদেশে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করার সুবিধা দিয়েছে। এখন বিদেশে থাকা বাংলাদেশী প্রবাসীরা চাইলে তাদের বিকাশ একাউন্ট থেকে খুব সহজেই যেকোনো সময় বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে পারবে। তাদেরকে আর হয়রানির শিকার হতে হবে না। 


বিদেশ থেকে বিকাশ ব্যবহার করার অসুবিধাঃ 

বিদেশ থেকে বিকাশ ব্যবহার করার সুবিধা থাকার পাশাপাশি অনেক অসুবিধাও রয়েছে। বিদেশ থেকে বিকাশ ব্যবহার করার সবথেকে বড় যে অসুবিধা সেটি হচ্ছে বিকাশের সকল সুযোগ-সুবিধা বিদেশ থেকে ব্যবহার করা যায় না। আপনি যদি বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করেন তাহলে দেখবেন বিকাশ অ্যাপে অনেক অপশন নেই। 


বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাকাউন্ট ব্যবহারকারীদের জন্য বিকাশ কর্তৃপক্ষ শুধুমাত্র মোবাইল রিচার্জ, সেন্ড মানি ও বিদেশ থেকে দেশে টাকা পাঠানোর সুবিধা রেখেছে। আপনি যদি আপনার বিকাশ একাউন্টে টাকা যুক্ত করতে চান তাহলে মানি ট্রান্সফার প্রতিষ্ঠান এবং পেওনিয়ার থেকে নিজ বিকাশ একাউন্টে টাকা যুক্ত করতে পারবেন। অতঃপর সেই টাকা দেশে থাকা প্রিয়জনের নাম্বারে সেন্ড মানি করে পাঠাতে পারবেন। এছাড়াও মোবাইল রিচার্জ করতে পারবেন। 


এই ছিল বিকাশ বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার নিয়ম। আপনারা উপরে দেখানো পদ্ধতি অনুযায়ী খুব সহজেই বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন। 


বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার সম্পর্কে বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন (FAQ) 

এই পোস্টে বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহারের নিয়ম দেখিয়েছি। তবে আপনারা বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার সম্পর্কে কিছু প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইতে পারেন। আপনারা এই পোস্ট সম্পর্কে যেসব প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইতে পারেন সেইসব সম্ভাব্য প্রশ্নের উত্তর নিম্নে দেয়া হলো- 


০১. বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করা যায়? 

উঃ হ্যাঁ, বিদেশ থেকে বর্তমানে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করা যায়। বিকাশ কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি প্রবাসে অবস্থিত বাংলাদেশিদের জন্য এই সুবিধা নিয়ে এসেছে।


০২. বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করতে কি কি লাগে? 

উঃ বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করতে আপনাকে বিদেশে একটি বিকাশ একাউন্ট খুলতে হবে। এছাড়াও আপনার পূর্বের বিকাশ একাউন্টের নাম্বার পরিবর্তন করে বিদেশের নাম্বার দিয়ে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন। 


০৩. বিদেশ থেকে বিকাশে রেমিটেন্স পাঠালে বোনাস দেয় কিনা?

উঃ বিদেশ থেকে বিকাশে রেমিটেন্স পাঠালে রেমিটেন্সের টাকা সরকারি বোনাস (হাজারে ২৫ টাকা) সহ আপনার বিকাশ একাউন্টে জমা হয়ে যাবে। 


০৪. সব দেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করা যায়? 

উঃ না, সব দেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করা যায় না। নির্দিষ্ট কিছু দেশ থেকে প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার ও নতুন বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবে। 


০৫. বিদেশ থেকে বিকাশে কি কি ব্যবহার করা যায়? 

উঃ বিদেশ থেকে বিকাশের সকল সুযোগ সুবিধা নিতে পারবেন না। বিদেশ থেকে বিকাশে শুধুমাত্র টাকা পাঠানো ও মোবাইল রিচার্জ সুবিধা নিতে পারবেন। 


০৬. বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করা যায় না কেন? 

উঃ যদি বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করতে না পারেন তাহলে প্লে স্টোর থেকে বিকাশ অ্যাপ আপডেট করে নিবেন। এরপরেও যদি ব্যবহার করতে না পারেন তাহলে আপনার ইন্টারনেট কানেকশন চেক করে দেখবেন। তারপরেও যদি সমস্যা হয় তাহলে চেক করে দেখবেন আপনি যে দেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ চালাতে চাচ্ছেন সেই দেশে বিকাশ ব্যবহার করার অনুমতি রয়েছে কিনা। 


বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার সম্পর্কে আপনারা যেসব সম্ভাব্য প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইতে পারেন সেইসব প্রশ্নের উত্তর উপরে দেয়া হয়েছে। উপরে দেয়া প্রশ্নের উত্তর ছাড়াও যদি আপনাদের এই পোস্ট সম্পর্কে আরো কোনো প্রশ্ন থাকে তাহলে এই পোষ্টের কমেন্টে অথবা আমাদের ফেসবুক পেজে জানাতে পারেন। আমরা আপনাদের এই পোস্ট সম্পর্কিত সকল প্রশ্নের উত্তর ও সমাধান দিব। 


পরিশেষে বলতে চাচ্ছিঃ

বিদেশ থেকে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করার নিয়ম নিয়ে এই টিউটোরিয়াল আশা করছি আপনাদের ভালো লাগবে এবং কাজে আসবে। যদি এই পোস্ট আপনাদের ভালো লাগে এবং কাছে আসে তাহলে কমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। এছাড়াও যদি আপনাদের কোথাও বুঝতে সমস্যা হয় অথবা বিদেশ থেকে বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আরো কিছু জানতে চান তাহলে কমেন্টে জানাতে পারেন। তবে এরকম সকল নতুন পোস্টের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে পাশে থাকতে ভুলবেন না। 

Share This Article On:

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url